জনসচেতনতা

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক ও ডাউনলোড করার নতুন নিয়ম (২০২১) (ভিডিও)

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক ও ডাউনলোড করার নিয়ম

একজন নাগরিকের জন্য জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্ট কার্ড খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এটি এনআইডি কার্ড (NID card) নামেও পরিচিত। জাতীয় পরিচয় পত্র চেক, ডাউনলোড ও ভুল সংশোধন করার নিয়মগুলো আজকে আলোচনা করব। আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন।

স্মার্ট কার্ড ডাউনলোডের সিস্টেমটি পরিবর্তিত হয়েছে। তাই আমরাও আমাদের পোস্টটি নতুন করে আপডেট করেছি। স্মার্ট কার্ড ডাউনলোডের নিয়ম ২০২১ অনুযায়ী আপনি অনলাইন থেকে আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

নতুন ভোটার ও পুরাতনদের জন্য NID card ডাউনলোডের সিস্টেমটি আলাদা করে দেওয়া হয়েছে। আমরা বর্তমানে শুধু নতুন ভোটারের জন্য অর্থাৎ যারা এখনো আইডি কার্ড পাননি তাদের জন্য নিয়মকানুন জানিয়ে দিব। আস্তে আস্তে বাকিদের সিস্টেমটিও আপডেট করা হবে।

স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড

বর্তমানে স্মার্ট কার্ড হিসেবে এনআইডি কার্ড পাওয়া যায়। তাই স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার করার নিয়মটা আজকে জানিয়ে দিব। যারা নতুন ভোটার হয়েছেন তারা খুব সহজেই স্মার্ট কার্ড নিতে পারবেন।

এই আইডি কার্ডটি আপনি মূল আইডি কার্ডের মতোই ব্যবহার করতে আরবেন। সেজন্য এটিকে প্রিন্ট করে র‍্যাপিং করে নিবেন। স্মার্ট আইডি কার্ড হচ্ছে জাতীয় পরিচয় পত্রের নতুন সংস্করণ।

এই নিয়মেই স্মার্ট কার্ড বা আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন। আর খুব সহজেই জাতীয় পরিচয় পত্র আসল না নকল তা বুঝতে পারবেন।

তাহলে চলুন, জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার সহজ নিয়মটি জেনে নেই।

জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম

নির্বাচন কমিশন তাদের সিস্টেমে কিছিটা পরিবর্তন এনেছে। তাই এখন আগের মতো একই নিয়ম সবাই জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে পারেন না। সবার জন্য আলাদা নিয়ম করা হয়েছে।

নতুন ভোটারের ক্ষেত্রে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড

যারা এখনো ভোটার আইডি কার্ড হাতে পাননি এই নিয়মটি শুধুমাত্র তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এনআইডি কার্ড না পেয়ে থাকলে খুব সহজেই মাত্র ২ মিনিটে আপনি এনআইডি কার্ডের নতুন সংস্করণ স্মার্ট কার্ড পেতে পারেন।

সর্বপ্রথম এই লিংকে ক্লিক করুন। এরপর নিচের মতো একটি পেজ পাবেন। সেখানে ভোটার নিবন্ধন ফরমের স্লিপ নম্বর ও জন্ম তারিখ দিন। এরপর ক্যাপচা এন্ট্রি করে ভোটার তথ্য দেখুন লেখাটিতে ক্লিক করুন।

সবকিছু ঠিক থাকলে আপনার আইডি কার্ডের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন। এখান থেকে লাল রঙে লেখা আপনার আইডি নম্বর সংগ্রহ করুন। এটি পরবর্তীতে কাজে লাগবে।

জেনে নিন ক্যাপচা কি? এবং কেন?

ভোটার তথ্য সংগ্রহের ফরম (জাতীয় পরিচয় পত্র চেক)
ভোটার তথ্য সংগ্রহের ফরম

এরপর নিচের নোটিশটি ভালোভাবে পড়ে নিন।

রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম

আশা করি, নোটিশটি পড়া শেষ হয়েছে। এরপর এই লিংকে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। এক্ষেত্রে ১ম ঘরে আপনার আইডি নম্বর, ২য় ঘরে আপনার জন্মদিন সিলেক্ট করুন। ৩য় ঘরে উপরের থাকা লেখাগুলো দেখে দেখে লিখে দিন। অর্থাৎ ক্যাপচা ইন্ট্রি করতে হবে।

ক্যাপচা এন্ট্রি করার সময় বড় হাতের ও ছোটহাতের অক্ষর ঠিকভাবে তুলতে হবে। যাহোক, এরপর সাবমিট লেখায় ক্লিক করুন।

রেজিষ্ট্রেশন করার ১ম ধাপ | জাতীয় পরিচয় পত্র চেক ও ডাউনলোড
রেজিষ্ট্রেশন করার ১ম ধাপ

১ম ধাপ সম্পন্ন হলো। এরপর আরেকটি পেজ পাবেন। নিচের ছবির মতো তথ্যগুলো পূরণ করতে হবে।

  • আপনার বিভাগ (Division) সিলেক্ট করুন। ছবিতে রাজশাহী সিলেক্ট করা হলো।
  • এরপর আপনার জেলা (District) সিলেক্ট করুন।
  • পরবর্তীতে আপনার উপজেলা (Upozilla) সিলেক্ট করুন।
  • পরবর্তী লেখায় ক্লিক করুন।
রেজিষ্ট্রেশন করার ২য় ধাপ | স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম
রেজিষ্ট্রেশন করার ২য় ধাপ

২য় ধাপের কাজও শেষ। এবার মোবাইল নম্বর দিয়ে OTP সংগ্রহ করার পালা। আইডি কার্ডের তথ্যে দেওয়া আপনার ফোন নম্বরের অংশ বিশেষ শো করবে। এক্ষেত্রে চাইলে আপনি মোবাইল নম্বর পরিবর্তনও করতে পারেন।

তবে মোবাইল নম্বর পরিবর্তন করলে OTP পেতে কিছুটা বিলম্ব হতে পারে। নম্বর পরিবর্তন করতে হলে মোবাইল পরিবর্তন লেখায় ক্লিক করতে হবে। আমরা এক্ষেত্রে আগের নম্বরটি রাখছি। সেজন্য বার্তা পাঠান লেখায় ক্লিক করতে হবে।

বার্তা পাঠান (৩য় ধাপ) | এনআইডি কার্ড ডাউনলোড
বার্তা পাঠান (৩য় ধাপ)

৩য় ধাপ শেষ। ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা OTP পাওয়ার জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হতে পারে। এই সময় অবশ্যই পেজটি থেকে বের হওয়া যাবেনা। কিছুক্ষণের মধ্যে আপনি ঐ মোবাইল নম্বরে ম্যাসেজের মাধ্যমে ৬ ডিজিটের একটি OTP নম্বর পেয়ে যাবেন। খালি বক্সে নম্বরটি লিখে বহাল লেখায় ক্লিক করুন।

SMS এ পাওয়া OTP লেখার বক্স
SMS এ পাওয়া OTP লেখার বক্স (৪র্থ ধাপ)

৪র্থ ধাপও শেষ হলো। এরপর আরেকটি পেজ পাবেন সেখানে চাইলে আপনি পাসওয়ার্ড সেট করতে পারবেন। অথবা এড়িয়ে যান লেখায় ক্লিক করে শুধুমাত্র OTP দিয়েই লগিন করতে পারবেন। আমরা এড়িয়ে যান লেখায় ক্লিক করলাম।

এড়িয়ে যান লেখায় ক্লিক করুন
এড়িয়ে যান লেখায় ক্লিক করুন

রেজিষ্ট্রেশন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এবার জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্ট কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার পালা। তো চলুন দেরি না করে শুড়ু করি।

রেজিষ্ট্রেশনের পর স্মার্ট আইডি কার্ড ডাউনলোড

এই পেজে আপনি আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করার অপশন পাবেন। সেখান থেকে ডাউনলোড লেখায় ক্লিক করে আইডি কার্ড ডাউনলোড করে নিন। কাজ শেষ।

স্মার্ট আইডি কার্ড ডাউনলোড
স্মার্ট আইডি কার্ড ডাউনলোড

আপনি একটি pdf ফাইলে স্মার্ট কার্ডটি পাবেন। এটিকে প্রিন্ট করে ন্যাশনাল আইডি কার্ড হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আইডি কার্ডটি কেমন হবে তা দেখে নিন।

ন্যাশনাল আইডি কার্ডের নমুনা কপি
ন্যাশনাল আইডি কার্ডের নমুনা কপি

জাতীয় পরিচয় পত্রের অনলাইন কপির স্ক্রিনশট দেওয়া হলো। নিরাপত্তার জন্য কিছু তথ্য ঘোলা করে দেওয়া হলো। আশা করি, সবকিছু বুঝতে পেরেছেন। কোনো কিছু বুঝতে সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করুন।

NID card অনলাইন কপি দিয়ে কি কি করা যাবে?

NID card বা জাতীয় পরিচয় পত্র চেক ও ডাউনলোড তো করা শেষ। এই অনলাইন আইডি কার্ড দিয়ে ব্যাংক একাউন্ট খোলা, সিমকার্ড রেজিষ্ট্রেশন করাসহ যাবতীয় অনেক কাজই কারতে পারবেন।

সাধারণ আইডি কার্ড দিয়ে যা যা করা যায় এই অনলাইন আইডি কার্ড দিয়েও সেগুলো করা যাবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার এই নিয়মটির কোনো কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে কমেন্ট করুন।

এখানে ক্লিক করে জাতীয় পরিচয় পত্র নিয়ে কিছু সাধারণ প্রশ্ন জেনে নিন। এটি আপনাকে অনেক সাহায্য করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close